বাংলাদেশ জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ এর উদ্যোগে জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম এর ৪৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা সভা ও কবিতা পাঠ অনুষ্ঠিত হয়


admin@123 প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২৩, ৮:৪৮ অপরাহ্ন /
বাংলাদেশ জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ এর উদ্যোগে জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম এর ৪৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা সভা ও কবিতা পাঠ অনুষ্ঠিত হয়

যুদ্ধ নয় শান্তি চাই জাতীয় কবি নজরুল ইসলামের আদর্শ বাস্তবায়নের জন্য সবাইকে ঐক্যভাবে কাজ করার আহ্বান বাংলাদেশ জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ এর।

জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ এর উদ্যোগে অদ্য ১৮সেপ্টেম্বর ২০২৩ সোমবার বাংলাদেশ শিশুকল্যাণ পরিষদে জাতীয় কবি নজরুল ইসলামের ৪৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা সভা ও কবিতা পাঠ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কবি নাহিদ রোকসানা, কলামিস্ট ও সাহিত্যিক। উদ্বোধক ছিলেন, এম এ জলিল, সভাপতি, বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ। প্রধান আলোচক ছিলেন, অভি চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক পরিষদ। সভাপতিত্ব করেন শেখ বাদশাউদ্দিন মিন্টু, বাংলাদেশ জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিজানুর রহমান মিজু, চেয়ারম্যান, জাতীয় স্বাধীনতা পার্টি, স্বপন কুমার সাহা, সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ ন্যাপ, লোকমান হোসেন চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, নারায়ণ কুমার দাস, চেয়ারম্যান, ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক পার্টি, কবি রুকসানা আমিন সুরমা, নারী নেত্রী, তাজুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা, লেখক কাজী মনিরুল ইসলাম মনির, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সভাপতি, শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ, খুলনা জেলা শাখা, হুমায়ুন কবির, বাংলাদেশ জাসদ নেতা, রোকন উদ্দিন পাঠান, সাধারণ সম্পাদক, আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ, নুর ইসলাম শেখ, দপ্তর সম্পাদক, জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ, কানিছা খাতুন তুনি, মহিলা সম্পাদিকা, জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ, মোঃ শামসুল আলম, সাবেক দপ্তর সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক পরিষদ, মোসাঃ ডলি, সাধারণ সম্পাদক, জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ, খুলনা জেলা সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন, কবি আছিয়া আক্তার, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ জনতা সাংস্কৃতিক পরিষদ।

অনুষ্ঠানে সভাপতির ভাষনে শেখ বাদশা উদ্দিন মিন্টু বলেন, কবি নজরুল, রবীন্দ্র, লালন, হাসান রাজার চেতনায় সাহিত্য চর্চা করতে হবে। তাহলেই বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিকশিত হবে। দেশের সংস্কৃতি উন্নত করতে হলে সুস্থ্য ধারার সংস্কৃতি চর্চার কোন বিকল্প নাই। বঙ্গবন্ধু বলেছেন, দেশের সাংস্কৃতিক মুক্তি পাবে। কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছেন, ক্ষুধার অভাবে মানুষ মরে না, মানুষ মরে বিনোদনের অভাবে। কবি নজরুল বলেছেন, গাহী সামনের গান “ মোরা এক বৃন্তে দুটি কুসুম হিন্দু-মোসলমান। মুসলিম তার নয়ণ-মণি, হিন্দু তাহার প্রাণ॥ এক সে আকাশ মায়ের কোলে, যেন রবি শশী দোলে, এক রক্ত বুকের তলে, এক সে নাড়ির টান।