সংরক্ষিত মহিলা আসনে এমপি হতে চান কাজী রুমা


admin@123 প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১০, ২০২৪, ২:৪৪ অপরাহ্ন /
সংরক্ষিত মহিলা আসনে এমপি হতে চান কাজী রুমা

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সংরক্ষিত মহিলা আসনের মনোনয়ন ফরম ক্রয় করে দৈনিক মাতৃভাষা পত্রিকায় কাজী রুমা বলেন, উপমহাদেশের প্রথম মুসলিম মহিলা চিকিৎসক অধ্যাপক ডাঃ জোহরা বেগম কাজীর উত্তরসূরী, কালকিনি উপজেলার স্বনামধন্য গোপালপুর কাজী বাড়ির মেয়ে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সংরক্ষিত মহিলা এমপি পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী কাজী রুমা।

কাজী রুমা আরো বলেন…কলেজ জীবন থেকে ছাত্রলীগের হয়ে আওয়ামীলীগের সাথে ছাত্রলীগ করে আসছি, ২০০১ সালে বিএনপি যখন ক্ষমতায় আওয়ামী লীগের দুর্দিনে ছাত্রলীগের হয়ে সংগ্রাম করেছি, ইডেন কলেজে লেখাপড়া করাকালীন সময়ে ছাত্রলীগের সাথে থেকে মাঠ পর্যায়ে কাজ করেছি এবং ২০০৯ সালের ২৯শে ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মনোনীত প্রার্থীদের হয়ে নির্বাচনের প্রচার প্রচারণায় নিরলস পরিশ্রম করেছি।

২০০৯ সালের পরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সকল কার্যক্রমে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছি। ২০১৪ সালে জাতীয় নির্বাচনের পূর্বে বিএনপি জামায়েতের অগ্নি সন্ত্রাস ও পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ, মানুষ পুড়িয়ে মারা ও বিএনপর বিভিন্ন অপরাজনীতির বিরুদ্ধে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছি। ঢাকা ১৭আসনের উপনির্বাচনে আরাফাত ভাইয়ের পক্ষে নৌকা মার্কার প্রচার-প্রচারণায় সক্রিয় ভূমিকা রেখেছি এবং দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাদারীপুর ৩ আসনের সংসদ সদস্য স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যাপিকা তাহমিনা বেগম সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কালকিনি উপজেলা শাখায় নির্বাচনীয় প্রচার-প্রচারণায় নিরলস ভূমিকা পালন করেছি। গুলশান থানা আওয়ামী লীগ ঢাকা মহানগর উত্তরের রাজপথের নিবেদিত কর্মী এবং প্রস্তাবিত সদস্য পদপ্রার্থী লীগের।

আমার ফুপু অধ্যাপক ডাঃ জোহরা বেগম কাজী উপমহাদেশের প্রথম মুসলিম মহিলা চিকিৎসক বিজ্ঞানী অধ্যাপক ডাক্তার জোহরা বেগম কাজী তিনি ছিলেন চিকিৎসক বিজ্ঞানের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র আমার ফুপু ভারতের মধ্যপ্রদেশের মহাত্মা গান্ধীর চিকিৎসা সেবায় তিনি প্রথম আত্মনিয়োগ হন এছাড়াও আমার ফুপু অধ্যাপক ডাক্তার জোহরা কাজী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পারিবারিক চিকিৎসক ছিলেন দীর্ঘ কর্মজীবনের আগে পরে বিভিন্ন পুরস্কারে ভূষিত হন যেমন ২০০২ সালে রোকেয়া পদক ২০০৫ সালে বি এম এ স্বর্ণপদক ও ২০০৮ সালে বাংলাদেশ সরকার তাকে একুশে পদকে ভূষিত হন। আমি একজন পারিবারিকভাবে আমাদের সু-নাম যশখ্যাতি রয়েছে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংরক্ষিত মহিলা আসনের মনোনয়ন ফরম বিতরন,, ০৭ই ফেবরুয়ারি ২০২৪ সনে সংরক্ষিত আসনের ফরম সংগ্রহ করতে আসেন সারাদেশ থেকে বিপুল সংখ্যক আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। এ সময়ে কাজী রুমা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে আরো বলেন, যারা ত্যাগী, যোগ্য এবং তৃণমূল পর্যায়ে থেকে দীর্ঘ বহু বছর আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসছেন তাদেরকেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মূল্যায়ন করবেন। আমি পারিবারিকভাবে আওয়ামী লীগার, আমার পূর্বপুরুষ বাপ-চাচারা যুগ-যুগ ধরে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করে আসছেন, আমি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত এবং বেশ কিছু সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের দলীয় সাংগঠনিক কার্যক্রমের সাথে জড়িত থেকে জনগণের সেবায় কাজ করে আসছি, যেমন (১) সাংগঠনিক সম্পাদক, অধ্যাপক ডাঃ জোহরা কাজী পরিষদ। (২) সাংগঠনিক সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় কমিটি। (৩) সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের জাতীয় আইন কলেজ শাখা। (৪) সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক, চাইল্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি। (৫) ক্লাব প্রেসিডেন্ট, লায়ন্স ক্লাব ঢাকা এমিনেন্সম, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি। (৬) আইন বিষয়ক সম্পাদক, রাইট টক বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটি। এছাড়াও আরো বেশ কিছু সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িত আছি।

আমি যোগ্য প্রার্থী তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনীত করবেন এবং দেশ ও জাতির সেবা করার সুযোগ করে দিবেন এই আশাই রাখি।

রিপোর্ট: সাহিদা আক্তার পাখী, দৈনিক মাতৃভাষা পত্রিকা।